বৃহস্পতিবার , ফেব্রুয়ারি ২ ২০২৩
Home / সারা দেশ / কুড়িগ্রামের উলিপুরে হিসাব রক্ষন কর্মর্কতার বিরুদ্ধে অভিযোগ **

কুড়িগ্রামের উলিপুরে হিসাব রক্ষন কর্মর্কতার বিরুদ্ধে অভিযোগ **

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
যাদের সাক্ষর নিয়ে দূর্নীতির অভিযোগ, তাদেরই অসন্তোষ। কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে  রংপুর বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক ও মহা হিসাব নিয়ন্ত্রকের কাছে উৎকোচ গ্রহন, হয়রানী ও দূর্নীতির অভিযোগ করায় উপজেলার অনেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেক প্রধান শিক্ষক জানেন না যে, তাদের স্বাক্ষর অভিযোগে ব্যবহৃত হয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভার উপস্থিতি হাজিরা সীট ব্যবহার করে অভিযোগ দায়ের করায় প্রধান শিক্ষকদের মাঝে গভীর অসন্তোষ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। উপজেলা হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে মোটা অঙ্কের উৎকোচ দেয়া ছাড়া শিক্ষকদের কোন কাজই পার হয়না সহ নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে উপজেলার ২শ ৬৮জন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগন উপজেলা হিসাব রক্ষন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রংপুর বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক ও মহা হিসাব নিয়ন্ত্রকের কাছে অভিযোগ করেন। যা পরবর্তীতে প্রকাশ পেলে উপজেলা
প্রাথমিক  শিক্ষা অফিসার সহ অনেক প্রধান শিক্ষক এ অভিযোগের বিষয়টি প্রথমে জানতেন না,পরে জেনেছেন। এ ঘটনায় শিক্ষকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে কুড়িগ্রাম জেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি ও বখশীগন্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম বলেন, আলোচনা শুরুর আগেই উপস্থিত প্রতিনিধিগন স্বাক্ষর করেন এবং সমিতির নেতৃবৃন্দ উপজেলা হিসাব রক্ষন অফিসারের বিরুদ্ধে উৎকোচের অভিযোগ এনেছেন। কিন্তু হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা একজন ভালো মানুষ ব্যাক্তিগত ভাবে তার বিরুদ্ধে আমার কোন অভিযোগ নাই। এমনকি ঘুষ বা অনিয়মের কোন ঘটনাও নজরে পরে নাই।
নেফরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এমদাদুল হক, নাটির খামার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম রব্বানী, উলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সোলায়মান মিয়া সহ আরও বেশ কয়েকজন প্রধান শিক্ষক অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, উলিপুর হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান উলিপুরে যোগদানের পর থেকে অদ্যবধি আমাদের শিক্ষকদের সাথে এমন কোন হয়রানি মুলক কর্মকান্ড, অসদাচরন ও উৎকোচ গ্রহন করেন নাই। প্রতিবেদকের প্রশ্ন অভিযোগ পত্রে স্বাক্ষর করেছেন কেন? তখন তারা(শিক্ষকগণ) বলেন উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন গত ১৫/১২/১৯ইং উলিপুর গুন্জন কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভার পূর্বে সদস্যদের উপস্থিতি স্বাক্ষর নেয়।পরে আমরা জানতে পারি আমাদের(শিক্ষকদের) স্বাক্ষর নিয়ে উপজেলা হিসাব রক্ষন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে।
প্রধান শিক্ষক সমিতির অনেকেই নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সমিতির নিয়মিত সভার শুরুতেই সকলের স্বাক্ষর নেয়া হয়, সভার সিদ্ধান্ত পরবর্তী সময় রেজুলেশন বইয়ে লিপিবদ্ধ করা হয়। পরবর্তী সময় এ স্বাক্ষরিত রেজুলেশনে মিটিং বহির্ভুত এজেন্ডা বসিয়ে হিসাব রক্ষন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ভূয়া দূর্নীতি ও হয়রানির অভিযোগ করায় তারা ক্ষুব্ধ হন।
সাক্ষর নেওয়া উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন জানান,উপজেলা হিসাব রক্ষন অফিসার হাফিজুর রহমান শিক্ষকদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করে আসছেন। তাকে মোটা অঙ্কের উৎকোচ দেয়া ছাড়া শিক্ষকদের কোন কাজই পার হয়না। এ কারনে আমরা সম্মিলিতভাবে বিভিন্ন দপ্তরে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছি।কিন্তু( আমরা সাংবাদিক) অনেক প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা অভিযোগের ব্যাপারে কিছু জানেন না এবং হিসাব রক্ষন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ হয়েছে তা সত্য নয়-এ ব্যাপারে আপনার(জাহাঙ্গীর) বক্তব্য কি? সকলের সম্মতিক্রমে অভিযোগটি করা হয়েছে।যে সকল শিক্ষক অভিযোগের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে তারা কেউ সেদিন উপস্থিত ছিলেন না। তাদের প্রতিনিধিগণ স্বাক্ষর করেছেন।ওই মিটিংয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার উপস্থিত ছিলেন বলে জানায় তিনি।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোজাম্মেল হক শাহ্ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,গত ১৫/১২/১৯ইং উলিপুর গুন্জন কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলাম।তবে উপজেলা হিসাব রক্ষন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগের ব্যাপারে কিছু জানি না।পরে শুনেছি তারা(শিক্ষকগণ) অভিযোগ করেছেন।
বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি উলিপুর উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম আনছারি বলেন, উলিপুর  উপজেলার প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ের ২৬৭ জন প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষরিত রেজুলেশন কতিপয় প্রধান শিক্ষক নিজেদের উদ্দেশ্য হাসিল করতে  উলিপুর হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে অসত্য ও ষড়যন্ত্রমুলক অভিযোগ করেছে। স্বাক্ষর করা প্রধান শিক্ষকদের মধ্যে আমার প্রতিনিধিও স্বাক্ষর করেছেন। অথচ অভিযোগের বিষয়ে সে/আমি কিছুই যানি না। এটা সম্পুর্ন ভিত্তিহীন অভিযোগ।
উপজেলা হিসাব রক্ষন অফিসার হাফিজুর রহমান অভিযোগের বিষয়ে বলেন,তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।
Attachments area

About admin

Check Also

নাগেশ্বরীর কচাকাটায় অবৈধ সংযোগ বিছিন্ন করতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত-৬

মোঃ মজিবর রহমান,নাগেশ্বরী,নাগেশ্বরী প্রতিনিধিঃ নাগেশ্বরীর চর মাদারগঞ্জে অবৈধ সংযোগ বিছিন্ন করতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের হামলার স্বীকার …

পঙ্গু হাসপাতালে শুয়ে যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে চিলমারীর মুন্নি

চিলমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনির্ধিঃ নিজের একমাত্র কন্যা সন্তানের জন্য বাচতে চায় চিলমারীর এভাসকুলার নেক্রসিস(এভিএন) আক্রান্ত মোছা.মাহমুদা আক্তার মুন্নি। …

যৌনকর্মী ও তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যদের নিয়ে বিট পুলিশিং সমাবেশ

ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ সামাজিক বৈষম্য দূরীকরণও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে সচেতন করতে ময়মনসিংহে যৌনকর্মী ও তৃতীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *