বৃহস্পতিবার , ফেব্রুয়ারি ২ ২০২৩
Home / জাতীয় / চীনে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস, বাংলাদেশে সতর্কতা **

চীনে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস, বাংলাদেশে সতর্কতা **

চীনে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বাংলাদেশে বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। নতুন এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এতে কারও শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি থাকলে তা শনাক্ত করা সম্ভব হবে। গত দু’দিনে চীনে ১৩৯ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

তবে দেশে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের কোনো খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি জানান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন কর হয়েছে। কারণ চীন থেকে আসা সব বিমান এই বিমানবন্দর দিয়ে ওঠানামা করে। একই সঙ্গে অন্যান্য বিমানবন্দরেও চিঠি পাঠানো হয়েছে।

পরিচালক বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীদের এ রোগের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা ও প্রতিরোধ নিয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। বিমানবন্দরে স্থাপিত হেলথ ডেস্কে এসব কর্মীকে পাঠানো হচ্ছে। চীন থেকে আসা সব যাত্রীকে স্ক্রিনিং করে প্রবেশ করানো হচ্ছে।

আইইডিসিআর চারটি হটলাইন খুলেছে জানিয়ে ডা. সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বিমানে আসা কোনো ব্যক্তির শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা, জ্বর, কাশি, গলাব্যথা- এসব লক্ষ্মণ পাওয়া গেলে স্ক্রিনিং করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে আইইডিসিআরের হটলাইনে ফোন করে জানানোর জন্য বলা হয়েছে। এ নম্বরগুলো হলো- ০১৯৩৭-১১০০১১, ০১৯৩৭-০০০০১১, ০১৯২৭-৭১১৭৮৪ এবং ০১৯২৭৭১১৭৮৫।

বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন, এয়ারলাইন্সগুলো এবং এভিয়েশনে কাজ করা সবাইকে স্বাস্থ্যকর্মীরা সচেতন করছে উল্লেখ করে পরিচালক বলেন, বিমানবন্দরে এলইডি মনিটরে রোগের লক্ষ্মণগুলো সার্বক্ষণিক জানানো হচ্ছে এবং কারও এই লক্ষ্মণগুলো থাকলে তাকে হেলথ ডেস্কে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

একই সঙ্গে কারও শরীরে করোনা ভাইরাসের লক্ষ্মণ পাওয়া গেলে নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা করে দেখা হবে। এদিকে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, চীনে গত দুই দিনে করোনা ভাইরাসে ১৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। গত ডিসেম্বরে দেশটির ইউহান শহরে প্রথম একজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। চীনের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা এটিকে করোনা ভাইরাস বলে শনাক্ত করেন। এরপর গত সপ্তাহে সিঙ্গাপুর, হংকং, সানফ্রান্সিসকো, লস অ্যাঞ্জেলেস এবং নিউইয়র্কের বিমানবন্দরে চীন থেকে আসা ফ্লাইটগুলোর যাত্রীদের স্ক্রিনিং করা হয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও সোমবার থেকে স্ক্রিনিং শুরু করা হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ইউহানের পর চীনের অন্যান্য শহরেও করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। থাইল্যান্ড ও জাপানের পর সোমবার দক্ষিণ কোরিয়ায়ও এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছে। সোমবার পর্যন্ত এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা দুইশ’ অতিক্রম করেছে। এ পর্যন্ত তিন জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

পরীক্ষা করে যা পাওয়া গেল: আক্রান্ত রোগীদের কাছ থেকে ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ করে তা গবেষণাগারে পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এই সংক্রমণ যে ভাইরাসের তা এক ধরনের করোনা ভাইরাস। অনেক ধরনের করোনা ভাইরাস রয়েছে। তবে ছয় ধরনের ভাইরাস মানুষকে আক্রান্ত করতে পারে। নতুন ভাইরাসসহ এটি হবে সপ্তম। প্রাথমিক পর্যায়ে সাধারণ সর্দি কিন্তু মারাত্মক ধরনের সংক্রমণ বা সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম বা সার্স হচ্ছে। এই ভাইরাসে ২০০২ সালে ৮ হাজার ৯৮ জন আক্রান্ত হয়েছিল। তাদের মধ্যে ৭৭৪ জনের মৃত্যু হয়। ভাইরাসের জিনগত বৈশিষ্ট্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, মানুষকে আক্রান্ত করা অন্য করোনা ভাইরাসের তুলনায় সার্সের সঙ্গে এটির মিল রয়েছে।

ভাইরাসটি ছোঁয়াছে কিনা তা জানা যায়নি: বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাথমিকভাবে গবেষকরা জানিয়েছিলেন, চীনের ইউহান শহরে মাছের বাজারে যাওয়া ব্যক্তিরা এই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। কিন্তু কয়েকজন আক্রান্ত পাওয়া যায়, যারা মাছের বাজারেই যাননি। এর বাইরে এই ভাইরাস নিয়ে এখনও খুব বেশি তথ্য পাওয়া যায়নি।

তবে আইইডিসিআর পরিচালক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে। ডব্লিউএইচও আশঙ্কা করছে, এই ভাইরাসটি মানুষ থেকে মানুষের মধ্যে ছড়াতে পারে। এর বাইরে বৃহৎ পরিসরে সংস্থটি ভাবছে না। তবে ভাইরাসটি ছোঁয়াচে কিনা সে বিষয়েও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নিশ্চিত করে কিছু বলেনি।

পরিচালক আরও বলেন, শ্বাসতন্ত্রের অসুখ হাঁচি-কাশি একজন থেকে অপর জনে সংক্রমিত হতে পারে- এমনটি ভেবে নিয়ে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। কারণ এই ভাইরাস যদি একজন থেকে অপরজনের মধ্যে ছড়ায় তাহলে অতি দ্রুত সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে।

About admin

Check Also

সাংবিধানিক প্রক্রিয়া ব্যাহত হয় এমন কোনো উদ্ভট ধারণাকে প্রশ্রয় দেবেন না

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবিধানিক প্রক্রিয়া ব্যাহত হয় এমন কোনো উদ্ভট ধারণাকে প্রশ্রয় এবং ইন্ধন না …

উন্নয়ন প্রকল্পগুলো শেষ করাই নতুন বছরের চ্যালেঞ্জ: আইনমন্ত্রী

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, আমরা জনগণকে দেশের উন্নয়নের অঙ্গীকার করেছিলাম। …

রাজনৈতিক নয়, কূটনীতি হবে অর্থনৈতিক: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্থানীয় শিল্পকে আরও কার্যকর করতে দেশীয় বাজার সম্প্রসারণ এবং জনগণের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *