রবিবার , ফেব্রুয়ারি ১৮ ২০২৪
Home / সারা দেশ / বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করানোর পর পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করানোর পর পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

পরকীয়া সম্পর্কে বাধা দেওয়ায় বগুড়ায় এক পরিবহন শ্রমিক বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করানোর পর আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে শহরের চকলোমান এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়রা অগ্নিদগ্ধ ওই নারীকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেছে। ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছে।

চিকিৎসকরা জানান, ওই নারীর পেটসহ শরীরের একাধিক স্থানে ফোস্কা পড়েছে। তবে তার অবস্থা আশংকাজনক নয়। পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, পুরো ঘটনাটি তারা তদন্ত করে দেখছেন।

শহরের চকলোকমান এলাকার বাসিন্দা সুরাইয়া খন্দকার জানান, বগুড়ার গাবতলী এলাকার বাসিন্দা ওই যুবক ‘হানিফ পরিবহনের’ সুপারভাইজার হিসেবে কর্মরত। রফিকুল গত ২৪ জানুয়ারি স্ত্রী ও ৬ বছর বয়সী এক কন্যাকে নিয়ে তার ভাইয়ের বাসা ভাড়া নেন।

তিনি বলেন, রফিকুল ইসলাম কয়েকদিন পর পর বাসায় আসতেন। তার সঙ্গে একাধিক নারীর পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে বলে তার স্ত্রী ইতিপূর্বে তাদের কাছে অভিযোগ করেছেন। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদও হতো। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে রফিকুল ইসলামের স্ত্রী হঠাৎ চিৎকার দিয়ে বাড়ির বাইরে আসে। এ সময় তার জামায় আগুন জ্বলছিল এবং দু’হাত বাঁধা ছিল। এ দৃশ্য দেখার পর হোসেন নামে স্থানীয় এক ব্যক্তিকে আগুন নিভিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

ওই নারীর ৬ বছর বয়সী কন্যা জানায়, শনিবার সকালে তার বাবা মোবাইল ফোনে এক নারীর সঙ্গে কথা বলছিলেন। বিষয়টি নিয়ে তার বাবার সঙ্গে মায়ের ঝগড়া শুরু হয়। পরবর্তীতে স্কুলে যাওয়ার পর সে আর কিছু দেখেনি।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই নারী বলেন, সকালে তার স্বামী এক বন্ধুকে নিয়ে বাসায় প্রবেশ করে। এক পর্যায়ে তারা দু’জনে মিলে তার হাত ও মুখ বেঁধে ফেলে। এরপর একটি ঘরে তুলে স্বামী তার বন্ধুকে ওই ঘরে ঢুকিয়ে দিয়ে তাকে ধর্ষণের নির্দেশ দিয়ে বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে। ধর্ষণের পর তাকে মারপিটের পর মাথার বেশ কিছু চুল কেটে ফেলা হয়। এক পর্যায়ে তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দিয়ে বাড়ির বাইরে চলে যায়।

বগুড়ার শাজাহানপুর থানার ওসি আজিম উদ্দিন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরপরই তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

তিনি বলেন, আমরা বিকেলে হাসপাতালে গিয়ে ওই নারীর সঙ্গে কথা বলেছি। এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি। তবে ওই নারী আমাদের কাছে অভিযোগ করেছেন তার স্বামী এক বন্ধুকে দিয়ে তাকে ধর্ষণ করিয়েছেন। আমরা তার শরীরে ব্লেড বা ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করার চিহ্ন দেখতে পেয়েছি। এছাড়া মাথা থেকে কিছু চুলও কাটা হয়েছে। ওই নারী আমাদের আরও জানিয়েছেন তার স্বামীর বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলাও রয়েছে। আমরা তার অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখছি।

বগুড়া শজিমেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক আব্দুল ওয়াদুদ জানান, ওই নারীকে গাইনি ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার পেটসহ শরীরের একাধিক স্থানে ফোস্কা এবং মাথার কিছু চুল কাটা রয়েছে।

তিনি বলেন, যেহেতু ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তাই ফরেনসিক পরীক্ষার প্রয়োজন রয়েছে।

About admin

Check Also

রংপুরে আইএফআইসি ব্যাংকের প্রতিবেশী উৎসব উদযাপিত

রেখা মনি, বিশেষ প্রতিনিধি (রংপুর): রংপুরে আইএফআইসি ব্যাংকের প্রতিবেশী উৎসব উদযাপিত হচ্ছে। গত বুধবার বিকালে …

কাউনিয়ায় নাজিরদহ একতা উচ্চ বিদ্যালয়ের এস এস সি পরীক্ষার্থীর বিদায়

আব্দুল কুদ্দুস বসুনিয়া, বিশেষ প্রতিনিধিঃ কাউনিয়ার নাজিরদহ একতা উচ্চ বিদ্যালয়ের এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় …

কুড়িগ্রামে ১০ দিনব্যাপী বিসিক উদ্যোক্তা মেলার উদ্বোধন

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি,  কুড়িগ্রামে অধিকসংখ্যক উদ্দ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে জেলা আউটার স্টেডিয়াম সংলগ্ন স্বাধীনতার বিজয় স্তম্ভের সামনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *