মঙ্গলবার , মে ২১ ২০২৪
Home / সারা দেশ / রাজিবপুর খাদ্য গুদাম দুর্নীতির মাস পেড়িয়ে গেলেও ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ

রাজিবপুর খাদ্য গুদাম দুর্নীতির মাস পেড়িয়ে গেলেও ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ

রাইসুল ইসলাম ফুল, রাজিবপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

সরকারিভাবে নির্ধারিত মূল্যে মহিলাদের কাছ থেকে চাল ক্রয়ের নামে কালো বাজারে পুরাতন চাল ক্রয় করে।  প্রমাণ পাওয়ার এক মাস অতিবাহিত হলেও ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ, এমনকি ঘটনা সংঘটিত হওয়ায় এর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করলে কোন আইনগত ব্যবস্থাও নেয়নি।
কুড়িগ্রাম জেলার রাজিবপুর উপজেলা খাদ্যগুদামের ঘটনা এটি, চলতি আমন মৌসুমে ধান চাল ক্রয়ে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়ম রয়েছে। খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বক্কর ১০টাকা কেজি চালের ফেয়ার ডিলারদের কাছ থেকে কালোবাজারে চাল ক্রয় করেন। এই কর্মকর্তার দুর্নীতিতে সহযোগিতা করেন সদর ইউনিয়নের শিবের ডাঙ্গী গ্রামের নাজমা ও উর্মি চাউল কল মালিক ইউসুফ আলী।
এলাকার ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল ব্যাপারটি নিয়ে তৎপর হলে ২ এপ্রিল চর রাজিবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মেহেদী হাসান ৯০০বস্তা পুরাতন চাল জব্দ করে এবং খাদ্য গুদাম সিলগালা করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আকবর হোসেন হিরো, আব্দুল হাই সরকার সভাপতি রাজীবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ, কামরুল আলম বাদল চেয়ারম্যান সদর ইউপি, মেহেদি হাসান তারেক সাধারণ সম্পাদক রাজীবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ, ব্যবসায়ী বৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন। এদিকে ব্যাপারটি নিয়ে আজাহার আলী এবং আব্দুল মোতালেব নামের দুই জন ব্যবসায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।
জেলা প্রশাসক জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা এবং  রাজিবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহাদয়কে অনুলিপি প্রদান করেন। আজাহার ও আবদুল মোতালেব বলেন দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা আবু বক্কর মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে উর্ধতন কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে সিলগালা খুলে আলামত সরিয়ে ফেলা হয়। এবং জব্দকৃত চাল অন্য জায়গায় সরিয়ে ফেলার অভিযোগ করে। এব্যাপারে চর রাজিবপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার মেহেদী হাসানকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন তদন্ত চলছে সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এখনই কিছু বলা যাচ্ছেনা।

About admin

Check Also

এবছরও উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি পেয়েছে ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজ

মাহফুজার রহমান মাহফুজ, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের সীমান্তবর্তী উপজেলা ফুলবাড়ী। স্বাধীনতা অর্জনের দুই বছরের …

কুড়িগ্রামে প্রিজাইডিং অফিসারদের প্রশিক্ষণে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রাম জেলায় অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন করার নিমিত্তে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২য় …

রংপুরে কিশোর গ্যাংয়ের মুলহোতা মেরাজ গ্রেফতার

রেখা মনি,রংপুর ব্যুরোঃ রংপুরে র‌্যাবের জালে বন্দি কিশোর গ্যাংয়ের মুলহোতা মেরাজ।কয়েকদিন আগে রংপুর নগরীর গণেশপুরে হোটেল ব্যবসায়ীর উপর হামলাকারী কিশোর গ্যাংয়ের মূলহোতা মো.মেরাজ (২০)কে গ্রেফতার করেছে রংপুর র‌্যাব-১৩।র‌্যাব বলছেন রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানা থেকে ওই কিশোরকে গ্রেফতার করা হয়। রোববার (১২)মে বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৩ এর  উপ-পরিচালক (মিডিয়া) স্কোয়াড্রন লিডার মাহমুদ বশির আহমেদ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি সুত্রে জানা গেছে,গত পহেলা মে রংপুর নগরীর গণেশপুর বকুলতলা এলাকায় মো. মিরাজ ও তার অন্যান্য কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা ভাই ভাই হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট এর সামনে পটকা ফুটাতে থাকে। তবে এঘটনায় ২জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানাগেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন-প্রধান আসামী মেরাজ ও শ্ওান। এতে হোটেল ম্যানেজার মো.শাহরিয়ার (২৬) বিরক্তি প্রকাশ করে কিশোরে বাবা মা এর কাছে তাদের নামে অভিযোগ বলে জানান।তখন সেখান থেকে চলে যায় তারা।পরেরদিন ২ মে মিরাজ ও তার কিশোর গ্যাং সদস্যরা দেশীয় অস্ত্র দা, লোহার ধারালো কিরিচ, লোহার রড ইত্যাদি নিয়ে ভাই ভাই হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট এ হামলা চালায়। হামলায় হোটেলের ম্যানেজার  শাহরিয়ার গুরুতর আহত হন। কিশোর গ্যাংয়ের সেদিনের হামলার ভিডিও (সিসি টিভি ফুটেজ) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দ্রæত ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ঘটনার পর মেরাজের সাথে থাকা অন্য দুই জন পুলিশের কাছে গ্রেফতার হলেও মিরাজ গা ঢাকা দেয়। এ ঘটনায় হোটেল মালিক বাদী হয়ে ওই দিনেই রংপুর কোতয়ালীয় ৩জনের নাম উলেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরপরই রংপুর-র‌্যাব-১৩ এর গোয়েন্দা দল ছায়া তদন্ত শুরু করে। ছায়া তদন্তের এক পর্যায়ে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে (রোববার) মিঠাপুকুর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাংয়ের মূলহোতা মো. মিরাজ কে গ্রেফতার করা হয়। এ বিষয়ে রংপুর ‌র‌্যাব- ১৩ এর  উপ-পরিচালক (মিডিয়া) স্কোয়াড্রন লিডার মাহমুদ বশির আহমেদ জানান,গ্রেফতার কিশোর গ্যাংয়ের মুলহোতা মেরাজকে আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সেই সাথে রংপুরে কিশোর গ্যাং মুক্ত করতে গোয়েন্দা তৎপরতা এবং নজরদারি রয়েছে বলে র‌্যাব জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *